পাঁচ দিনের অপেক্ষা মিটবে পাঁচ মিনিটে

প্রকাশিত: ৩:৪৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০২০

 

সত্যজিৎ ঘোষ, শরীয়তপুর

পটুয়াখালীর ট্রাকচালক বাবুল মিয়া ১৫ বছর ধরে গাড়ি চালান। ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে তাঁকে যেতে হয়। এবার ধান বোঝাই করে সাভারে যাওয়ার জন্য পাঁচ দিন ধরে মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটে বসে আছেন তিনি। কখন ফেরির সিরিয়াল পাবেন, তা–ও জানেন না। বৃহস্পতিবার পদ্মা সেতুর শেষ স্প্যান বসে দুই প্রান্তকে যুক্ত করার আনন্দ বাবুল মিয়া উপভোগ করেছেন পদ্মার তীরে দাঁড়িয়ে। পদ্মা সেতু চালু হলে পাঁচ মিনিটেই পার হতে পারবেন তিনি।

 

বাবুল মিয়া বলেন, ‘নদী পারাপারের জন্য শীতের মধ্যে পাঁচ দিন নদীর তীরে থাকা অনেক কষ্টের। আমাদের জীবনের বড় সময়জুড়ে এমন কষ্টে কেটেছে। এ কষ্ট কেউ বুঝবে না। বৃহস্পতিবার যখন শুনলাম পদ্মা সেতুর শেষ স্প্যান বসানো হচ্ছে, তখন মনটা আনন্দে ভরে গেছে। মুহূর্তে ১৫ বছরের পারাপারের কষ্টটা ভুলে গেলাম।’

 

কুয়াশা ও নাব্যতা–সংকটে কাঁঠালবাড়ি ও শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল সীমিত করা হয়েছে। এ কারণে মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটে অন্তত ৬০০ পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারের অপেক্ষায় আটকা পড়েছে।

 

 

ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলায় যাতায়াতের জন্য শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌপথ ব্যবহার করতে হয়। এই পথের মাওয়া-জাজিরা প্রান্তেই হচ্ছে পদ্মা সেতু। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য ওই সেতু পার হতে লাগবে ৫ মিনিট। আর এখন নৌপথটির ১২ কিলোমিটার পাড়ি দিতে হচ্ছে।

 

বর্তমানে নৌপথটিতে পণ্য ও যাত্রীবাহী যানবাহন পারাপার হতে ১৪টি ফেরি চালু রাখা হয়েছে। এখন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল করছে। এ ছাড়া কুয়াশা ও নাব্যতা–সংকটের কারণে আরও বেশি সময় ফেরি চলাচল বন্ধ রাখতে হচ্ছে বিআইডব্লিউটিসিকে।

 

ট্রাকচালক স্বপন মিয়া বরিশাল থেকে লোহার সামগ্রী নিয়ে ঢাকা যাচ্ছেন। ৭ ডিসেম্বর থেকে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে অপেক্ষা করছেন তিনি, পাচ্ছেন না ফেরির সিরিয়াল।

স্বপন মিয়া বলেন, ‘চার দিনেও ফেরির সিরিয়াল পেলাম না। সেতু চালু থাকলে তো পাঁচ মিনিটেই নদী পার হতে পারতাম। ঠান্ডার মধ্যে নদীর ঘাটে থাকতে অসুবিধা হচ্ছে। বাড়তি টাকা খরচ হচ্ছে। জানি না কবে সেতু দিয়ে পার হতে পারব, আর দুর্ভোগ শেষ হবে।’

 

নদীশাসনের কাজের জন্য কাঁঠালবাড়ি থেকে ফেরিঘাট ৫০০ মিটার পশ্চিমে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সেখানে ট্রাক পার্ক করে রাখার জন্য চারটি ইয়ার্ড নির্মাণ করা হয়েছে। ইয়ার্ডগুলোতেই পণ্যবাহী ট্রাকগুলো রাখা হয়েছে। সেখান থেকে ট্রাকগুলোকে ফেরির জন্য সিরিয়াল দেওয়ার কাজ করে বিআইডব্লিউটিসির পক্ষে আনসার সদস্যরা। কাঁচা মাল ও ফলের ট্রাকগুলোকে ফেরির সিরিয়াল দেওয়ার জন্য তাঁদের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

ভোমরা স্থলবন্দর থেকে আদা বোঝাই করে ঢাকার শ্যামবাজার যাবেন ইমদাদ হোসেন। আর বেনাপোল থেকে ফল নিয়ে ঢাকার বাদামতলা যাবেন দুলাল খান। তাঁরা দুজনেই বুধবার দুপুরে কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটে এসেছেন। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তাঁরা ফেরির সিরিয়াল পেয়েছেন। তবে এ জন্য তাঁদের গুনতে হয়েছে মাথাপিছু ৫০০ করে মোট ১ হাজার টাকা।

 

সিরিয়াল দেওয়ার কাজ করেন ১৩ জন আনসার সদস্য। তাঁদেরই একজন একরামুল হক। তিনি টাকা নেওয়ার কথা অস্বীকার করেন। তাঁর সামনে ট্রাকচালকেরা অভিযোগ করলে তিনি সে স্থান থেকে চলে যান।

 

ট্রাকের সিরিয়াল দেওয়ার কাজ করছিলেন বিআইডব্লিউটিসির টার্মিনাল সহকারী জাহাঙ্গীর হোসেন। তিনি  বলেন, ‘কারা ট্রাকচালকদের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছেন, তা জানি না। আর প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে ফেরি চলাচল কমে গেছে। যার কারণে ঘাটে পণ্যবাহী গাড়ি আটকা পড়েছে।’