বৃষ্টি শেষে শীতের পদধ্বনি

প্রকাশিত: ১১:০৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৪, ২০২০

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ কেটে গেছে। শনিবার সকালে ঢাকায় ঝিরঝিরে বৃষ্টি হলেও বর্তমানে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। বিকেল থেকে বৃষ্টি কমে আসতে পারে। শুধু ঢাকায় নয়, দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির প্রবণতাও কমে আসছে।

আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান জানান, লঘুচাপ-নিম্নচাপের প্রভাবে টানা বৃষ্টি ছিল। নিম্নচাপ এরইমধ্যে উপকূল অতিক্রম করেছে। তাই আজ থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টির প্রবণতা কমে আসছে।

শীতের বার্তা কবে পাওয়া যাবে? এ প্রশ্নের উত্তরে আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান বলেন, ২৮ অক্টোবর থেকে আকাশ পরিষ্কার হতে শুরু করবে। এরপর একটা বিরতি থাকবে। এখন যেহেতু কিছুটা বৃষ্টি হচ্ছে, এ কারণে তাপমাত্রা কমতে থাকবে। এর প্রভাব ২৮ অক্টোবরের পরও থাকতে পারে। যেহেতু দিনের ব্যাপ্তি কমে এসেছে, তাই চলতি মাসের শেষ দিক থেকে একটা শীত শীত অনুভূতি থাকবে। তবে এটিকে শীতকাল বলা যাবে না।

আবদুল মান্নান বলেন, রাতের তাপমাত্রা ভোরের দিকে কমার প্রবণতা আসবে সপ্তাহখানেকের মধ্যেই। নভেম্বরের মাঝামাঝাঝি শীতের বার্তাও থাকবে আবহাওয়ায়। তবে প্রচুর বৃষ্টি ও বন্যা হওয়ায় এ বছর শীত জেঁকে বসার আশঙ্কা কম।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, রোববার থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টা দেশের কিছু জায়গায় হালকা থেকে মাঝারি বর্ষণ হতে পারে। তবে দেশের উত্তরাঞ্চলে ভোরে প্রচুর কুয়াশা ঝরতে দেখা যাচ্ছে। অন্যান্য বছর এই সময় শীতের বিস্তার শুরু হলেও এবার তেমন অনুভূত হচ্ছে না।

চলতি বছরে অতিবর্ষণ ও বন্যার কারণে এখনো খাল-বিল-জলাশয় পানিতে ভরা। তাই বেশি জলীয়বাষ্পে কুয়াশা বেশি হচ্ছে। একই কারণে এবারের শীতের তীব্রতা কম হবে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা।

উনো বর্ষায় দুনো শীত, অর্থাৎ অল্প বৃষ্টি হলে সে বছর প্রচুর শীত পড়ে- এমন একটি প্রবাদ চালু থাকলেও, বেশি বৃষ্টিতে কম শীত- এমন কোনো প্রবাদের প্রচলন নেই।