তাহিরপুরে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের।

প্রকাশিত: ১২:০২ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:

তাহিরপুরে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার (২১শে ফেব্রুয়ারি) আব্দুল জব্বার বাদী হয়ে প্রতিপক্ষীয় গ্রুপের ৫ জনকে অভিযোক্ত করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অন্যদিকে সাইকুল ইসলাম গ্রুপের পক্ষ থেকে কুতুব উদ্দীন বাদী হয়ে ১৭ জনকে অভিযোক্ত করে পাল্টা লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন বলে জানাযায়।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন, টাংগুয়ার হাওরে অবাধে মহিষ চলাচলে বাধা দেওয়ায় গত শনিবার সকালে তাহিরপুর উপজেলার মন্দিয়াতা গ্রামে আব্দুল জব্বার ও একই গ্রামের সাইকুল ইসলাম পক্ষদ্বয়ের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হন। সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো.সাজিনুর মিয়া বলেন, আব্দুল জব্বার আমাকে জানিয়েছেন তার প্রতিপক্ষীয় সাইকুল মিয়ার লোকজন টাংগুয়ার হাওরে বহিরাগতদের দিয়ে মহিষ পালন, হাসঁ পালনসহ তারা আধিপত্য বিস্তার করছেন। এসব কাজে বাধা দেওয়ায় আব্দুল জব্বারের লোকজনের সাথে সংঘর্ষ হয়।

সাবেক ইউপি সদস্য মো.আব্দুল হক বলেন, জানতে পেরেছি টাংগুয়ার হাওরে আব্দুল জব্বারের লোকজন ছাই (মাছ ধরার যন্ত্র) দিয়ে মাছ ধরছিলেন। এসময় সাইকুল ইসলামের নিয়ন্ত্রণে থাকা বহিরাগত মহিষের পদচারণায় ছাই গুলো ভেঙ্গে যায়। এরই জের ধরে তাদের মাঝে সংঘর্ষ হয়।

তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আব্দুল লতিফ তরফদার দু’পক্ষের দায়েরকৃত অভিযোগ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সংঘর্ষের বিষয়টি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও ভিট পুলিশিং-এর মাধ্যমে সামাধানের চেষ্টা চলছে।

উলেক্ষ্য: জীব বৈচিত্র্যের গুরুত্বপূর্ণ জলাভূমি জলচর ও পরিযায়ী পাখিদের আবাসস্থল টাংগুয়ার হাওরে বহিরাগত মহিষ দিয়ে  প্রাকৃতিক সম্পদ বিনাশ হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সম্প্রতি একাধিক গণমাধ্যমে বহিরাগত মহিষ পালনে হাওরের জীব বৈচিত্র্য ধ্বংসের সচিত্র প্রতিবেদন প্রচার ও প্রকাশিত হয়।